Tuesday , October 23 2018
Breaking News

ঠাকুরগাঁওয়ের হিমেল হোটেলে খাসির মাংসে গুচ্ছ চুল

ঠাকুরগাঁওয়ে হিমেল হোটেলের খাবারের মান নিয়ে অভিযোগ উঠেছে।অভিযোগ উঠেছে হোটেলে বিভিন্ন সময় বাসি খাবার, অস্বাস্থ্যকর ও অরুচিকর খাবার পরিবেশন করা হয়। যা কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় দিন দিন বেড়েই চলেছে।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, ইসলাম প্লাজার মোবাইল হাসপাতাল নামের দোকানের ব্যবসায়ী আক্কাস, মঙ্গলবার দুপুরে হিমেল হোটেলে দুপুরের খাবার খেতে গেলে খাসির গোস্তের ভেতর খাসির গুচ্ছ চুল দেখতে পায়।সেটা কর্তৃপক্ষকে অবগত করলে তারা বলে গোস্তের ভেতর একটু-আধটু চুল থাকবেই, আপনারা বাসায় খেতে বসলে খাবারে চুল পান না গোছের দায়সারা উত্তর দেয়।

এই অভিযোগ শুধু আক্কাসের নয়।আরও অনেকেই জানান, হিমেল হোটেলের স্বত্বাধিকারীর আরও একটি হোটেল রোজ।সেখানেও প্রায়ই গোস্তের ভেতর চুলসহ ময়লা দেখা যায়। এছাড়া হোটেলের মিষ্টি প্রায়ই বাসি থাকে, একটা গন্ধ আসে।ভালো খাবারের সাথে বাসি খাবার মিশিয়ে দিব্যি চালিয়ে দেওয়া হয়। এছাড়াও হোটেলে অন্য হোটেলের চাইতে খাবার একটু ব্যয়বহুল।এসি কেবিনের জন্যও নেওয়া হয় বাড়তি টাকা।

ভুক্তভোগীরা বলেন, বাড়তি টাকা দিয়ে আমরা কেনো অরুচিকর খাবার খাবো। ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯ সালের ২৬নং আইনের ৫৩ নম্বর পয়েন্টে উল্লেখ আছে,”কোন সেবা প্রদানকারীর অবহেলা, দায়িত্বহীনতা বা অসতর্কতা দ্বারা সেবা গ্রহীতার অর্থ, স্বাস্থ্য বা জীবনহানী ঘটাইলে তিনি অনূর্ধ্ব তিন বৎসর কারাদণ্ড, বা অনধিক দুই লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড, বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন”।

এ ব্যাপারে হিমেল হোটেলের স্বত্বাধিকারী আবুল কাশেমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এত টাকা খরচ করে ঠাকুরগাঁওয়ের মানুষের সেবা দিচ্ছি, একটু-আধটু সমস্যা থাকবেই।আপনারা নিউজ করলেও আমার কিছুই হবে না,বড় জোর ডিসি সাহেব ডেকে নিয়ে বোঝাবেন।আর দুই, একটা নেগেটিভ নিউজ না করলে প্রচার পাবো কিভাবে