Wednesday , December 19 2018
Breaking News

আপনার ত্বকের সমস্যার সমাধান দিবে টুথপেস্ট

দাঁতের যত্নে টুথপেস্টের কথা তো সবারই জানা কিন্তু ত্বকের যত্নে টুথপেস্টের কথা অনেকেরই অজানা। ত্বকের যত্নে অনেক নামীদামী প্রসাধনীও এমন উপকারিতা দিতে পারবে না যা টুথপেস্ট দিতে পারে। বাজারে টুথপেস্ট তো অনেক ধরনের পাওয়া যায়। নানা রং, স্বাদ ও গন্ধের। তবে ত্বকের যত্নে সাধারণ ফ্লুরাইড টুথপেস্টই বেশি কাজে দেয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক ত্বকের কিছু সমস্যার সমাধানে টুথপেস্টের ব্যবহার।

ত্বকের সমস্যার সমাধানে টুথপেস্টের ব্যবহারঃ

উজ্জলতা বাড়াতেঃ চটজলদি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে টুথপেস্টের জুড়ি নেই! বাইরে যাবার আগে যদি ত্বকের যত্ন নেবার জন্য যথেষ্ট সময় না থাকে তাহলে ব্যবহার করুন টুথপেস্ট। সাধারণ ফেসওয়াসের মতো ব্যবহার করুন এবং প্রচুর পরিমাণে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।দেখবেন ইন্সট্যান্ট উজ্জ্বল হয়ে গেছে ত্বক ।

বলিরেখাঃ শুধু যে বয়স বাড়লেই ত্বকে বলিরেখা পড়ে, তা কিন্তু নয়! অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা, পর্যাপ্ত বিশ্রামের অভাব, অনিদ্রা ইত্যাদি কারণে বয়স বেশি না হলেও ত্বকে বলিরেখা পড়তে পারে।

ব্যবহার পদ্ধতিঃ ঘন টুথপেস্টকে পানি মিশিয়ে পাতলা করে নিন। তারপর মুখ, গলা, ঘাড়ে প্রলেপ লাগান। না শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এ সময় ভুলেও কথা বলবেন না বা হাসবেন না। পেস্ট শুকিয়ে গেলে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন এভাবে টুথপেস্ট ব্যবহার করুন। বলিরেখার সমস্যা কমে যাবে।

ব্রণ নিরাময়েঃ ব্রণের সমস্যাতেও টুথপেস্ট খুব ভালো কাজ দেয়। বিশেষ করে ব্যথাযুক্ত ব্রণে। রাতে ঘুমানোর আগে ব্রণের উপর টুথপেস্টের প্রলেপ লাগিয়ে ঘুমাতে যান। সকালে উঠে দেখবেন ফোলা কমে গেছে, আবার ব্যথাও অনেক কম।

হোয়াইট হেডস সমস্যা সমাধানঃ ধুলোময়লা, দূষণ, মেকআপ ইত্যাদির কারণে রোমকূপ বন্ধ হয়ে। ফলে দেখা দেয় ব্ল্যাক হেডস। ব্ল্যাক হেডসের পূর্ববর্তী অবস্থা হলো হোয়াইট হেডস। এতে লোপকূপের ছিদ্র বন্ধ হয়ে যায়। যেসব জায়গায় এই হোয়াইট হেডস রয়েছে যেমন, নাক, কপাল, চিবুক সেসব জায়গায় পুরু করে টুথপেস্টের প্রলেপ লাগান। শুকিয়ে গেলে খুঁটে খুঁটে তুলে ফেলুন। এরপর ভালো করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন হোয়াইট হেডসের সমস্যা গায়েব।

তথ্য এবং ছবি : গুগল