Friday , December 14 2018
Breaking News

বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় বজ্রপাতে নিহত ৭০ তাই যেনে নিন এখুনি

কালবৈশাখীর সঙ্গে সবচেয়ে বড় আতঙ্কের নাম এখন বজ্রপাত। আবহাওয়া অফিস বলছে, বৈশাখের সামনের দিনগুলোতে আশংকাজনক হারে বাড়ছে পারে ঝড় এবং বজ্রপাত।
চলতি বছরের মার্চ ও এপ্রিল মাসে ৭০ জন মানুষ বজ্রপাতে নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। মঙ্গলবার (১ মে) সচিবালয়ে চলমান আবহাওয়া পরিস্থিতি এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের গৃহীত পদক্ষেপের বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘গত ২৯ ও ৩০ এপ্রিল দুইদিনে ২৯ জন লোক বজ্রপাতে মারা গেছেন। গত মার্চ মাসে ১২ জন এবং এপ্রিল মাসে ৫৮ জনসহ মোট ৭০ জন লোক বজ্রপাতে মারা গেছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দেশবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই বজ্রপাত ও বৃষ্টিপাতের সম্ভাব্য পরিস্থিতি সরকার গভীরভাবে পর্যবেক্ষণে রেখেছে। বর্ষা মৌসুম সামনে। এ সময়ে ঝড়-তুফান হওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে সকলকে পরিস্থিতি দেখে শুনে ঘর থেকে বের হতে হবে।’

উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল ঝড়-বৃষ্টির মধ্যে দেশের ৯ জেলায় বজ্রপাতে ১৯ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ১৪ জন। সিরাজগঞ্জে পিতা-পুত্রসহ পাঁচজন, মাগুরায় চারজন, নওগাঁয় দুইজন, সুনামগঞ্জে একজন, গাজীপুরে দুইজন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একজন, গোপালগঞ্জে একজন, নোয়াখালীতে দুইজন ও রাঙ্গামাটিতে একজন নিহত হয়েছে।

এদিকে ৩০ এপ্রিল থেকে চব্বিশ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন এলাকায় আরও কালবৈশাখী ঝড়ের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পূর্বাভাস অনুযায়ী ৩০ এপ্রিল সকাল দশটা থেকে পরবর্তী চব্বিশ ঘণ্টা অর্থাৎ আজ ১ মে সকাল পর্যন্ত সময়ে ঝড়, দমকা হাওয়া ও সাথে থাকবে ভারী বর্ষণ।

ওদিকে পূর্বাভাস অনুযায়ী রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, সিলেট ও নোয়াখালীসহ দেশের প্রায় সর্বত্রই ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বা তার চেয়েও বেশি গতিতে কালবৈশাখী ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। একই সাথে সম্ভাবনা রয়েছে শিলাবৃষ্টিরও।