Friday , November 16 2018
Breaking News

আইপিএলে বিডের সাতগুণ বেশি দামে মাশরাফিকে কিনেছিল কলকাতা

আইপিএলের এবারের আসর শুরু হচ্ছে আগামী এপ্রিলে। ১১তম আসরে নতুন করে সাজবে দলগুলো। কারণ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরেছে দুটি দল আর এবারের আসরে করা হয়েছে নতুন নিয়ম। ফলে অনেক নতুন ক্রিকেটার দলে জায়গা পেতে পারেন। উল্টোটাও হতে পারে। লিগের নিলামে এবার উঠেছেন বাংলাদেশের আটজন ক্রিকেটার। তারা হলেন সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, লিটন কুমার দাস, সাব্বির রহমান ও আবুল হাসান রাজু।

আইপিএলে সাত বছর ধরে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলছেন সাকিব আল হাসান। দুই বছর ধরে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলছেন মোস্তাফিজ।

এই দুই তারকা ছাড়া আরো চারজন বাংলাদেশী ক্রিকেটার এ পর্যন্ত আইপিএলে খেলেছেন। তারা হলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা, আব্দুর রাজ্জাক, মোহাম্মদ আশরাফুল ও তামিম ইকবাল।

মাশরাফি বিন মর্তুজা (কলকাতা নাইট রাইডার্স) :
মাশরাফিকে নিয়ে আইপিএলের নিলামে কাড়াকাড়ি করেছিল দুই দল কলকাতা নাইট রাইডার্স আর কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। সবশেষে কলকাতাই তাকে দলে ভেড়ান। বিডের সাতগুণ বেশি দামে তাকে কিনে নেয় কলকাতা। তবে দুই আসর মিলিয়ে তিনি খেলিয়েছে মাত্র একটি ম্যাচ। রান করেছেন ২*। উইকেট পাননি একটিও। তবে অনেক দামি খেলোয়াড় ছিলেন মাশরাফি।

আব্দুর রাজ্জাক (রয়েল চ্যালেন্জার্স ব্যাঙ্গলুরু) :
আব্দুর রাজ্জাক প্রথম আসরে খেলেছেন রয়েল চ্যালেন্জার্স ব্যাঙ্গলুরু হয়ে। এক ম্যাচে দুই ওভার বল করে দিয়েছেন ২৯ রান। কোনো উইকেট পাননি।

মোহাম্মাদ আশরাফুল (মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স) :
মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে মাত্র একটি ম্যাচ খেলেছেন আশরাফুল। ব্যাট হাতে করেছেন দুই রান।

সাকিব আল হাসান (কলকাতা নাইট রাইডার্স) :
বাংলাদেশীদের মধ্যে আইপিএলে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছেন সাকিব। ৪৩ ম্যাচে করেছেন ৪৯৮ রান। রয়েছে দুটি অর্ধশতক। উইকেট পেয়েছেন ৪৩টি।

তামিম ইকবাল (পুনে ওয়ারিয়র্স) :
তামিমকে পুনে কিনলেও খেলায়নি একটি ম্যাচও।

সাত বছর ধরে কলকাতার হয়ে সাকিব এবং দুই বছর হায়দরাবাদের হয়ে খেলেছেন মোস্তাফিজ

মোস্তাফিজুর রহমান (সানরাইজার্স হায়দরাবাদ) :
২০১৬ আইপিএলে অভিষেকেই বাজিমাত করেছেন মোস্তাফিজ। ১৭ ম্যাচে ফিজ পেয়েছেন ১৭ উইকেট। পেয়েছেন সেই আসরের উদীয়মান তারকার পুরস্কারও।