Monday , May 21 2018
Breaking News

তাহলে কি অপুর অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে?

ডিএনসিসি’র পারিবারিক আদালতে শাকিব-অপুর ডিভোর্স সংক্রান্ত বিষয়ে বৈঠক হয়েছে কিছুদিন আগেই। ওই সমঝোতা বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন অপু বিশ্বাস। কিন্তু শাকিব খান দেশের বাইরে শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকায় আসতে পারেননি। শাকিবের অনুপস্থিতিতে নতুন করে বৈঠকের দিন ধার্য হয়। সেই সঙ্গে অপু বিশ্বাস অপেক্ষায় থাকেন শাকিবের।
এদিকে, ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান। প্রায় একমাস পর রোববার ঢাকায় ফিরেছেন তিনি। জানা গেছে, শাকিব খান সপ্তাহ খানেক ঢাকায় থাকবেন। এরপর চিত্রপরিচালক আশিকুর রহমান পরিচালিত ‘সুপার হিরো’র শুটিং করতে অস্ট্রেলিয়ায় যাবেন তিনি। সেখানে এক মাসের মতো থাকবেন। এদিকে শাকিব দেশে আসায় অপুর অপেক্ষার পালা কিছুটা হলেও শেষ হয়েছে।

প্রথম বৈঠকে অপু জানিয়েছিলেন সে বিচ্ছেদের পক্ষে নয়। শাকিবের সঙ্গে থেকেই সন্তান নিয়ে সংসার করতে চায় অপু। কিন্তু অপুর এই বক্তব্যের পর শাকিব কি সিদ্ধান্ত নিবেন সেই অপেক্ষাতেই আছেন অপু। এখন শাকিব ঢাকায় এসেছেন অপুর সেই অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে। অপু আশা করছেন শাকিব হয়তো কোন একটা সিদ্ধান্ত দেবেন।

উল্লেখ্য, গত ২৪ ডিসেম্বর শাকিব ও অপুর কাছে শুনানিতে হাজির হওয়ার জন্য নোটিস পাঠানো হয়। নোটিসে জানানো হয়, ১৫ জানুয়ারি ডিএনসিসির অঞ্চল-৩ এর অফিসে তাদের তালাকের বিষয়টি নিয়ে শুনানি হবে।

সিটি করপোরেশনের পারিবারিক আদালত সূত্রে জানা গেছে, কোনো পক্ষ তালাকের আবেদন করলে আদালতের কাজ হচ্ছে ৯০ দিনের মধ্যে উভয়কে তিনবার ডেকে সমঝোতার চেষ্টা করা। সমঝোতা না হলে স্বাভাবিকভাবেই তালাক কার্যকর হয়ে যাবে। এখানে সময় বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই। তবে এখনও যে সময় রয়েছে তাতে দুজন চাইলেই সমঝোতায় আসতে পারেন।

উল্লেখ্য, শাকিব-অপু চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় জুটি। আলমগীর-শাবানার ১২৬টি সিনেমার জুটির পর তারাই সর্বোচ্চ জুটি হিসেবে সত্তরটিরও বেশি সিনেমাতে কাজ করেছেন। কাজের সূত্রেই সম্পর্কের গভীরতা ও প্রেম। এরপর তারা ২০০৮ সালে বিয়ে করেন। দীর্ঘ নয় বছর সেই বিয়ের খবর ছিলো গোপন।

গেল বছরের মে মাসে অপু সন্তানসহ প্রকাশ্যে আসেন এবং বিয়ের খবর প্রকাশ করেন। এরপর থেকেই শাকিব-অপুর দাম্পত্যে ফাটল ধরে। শাকিবের আদেশ অমান্য করে বিয়ের খবর প্রকাশ করাতেই অপুর উপর ক্ষুব্দ হন তিনি। সেই ক্ষোভের রেশ নিয়ে গত বছরের ২৮ নভেম্বরে স্ত্রী অপু বিশ্বাসকে তালাক নোটিশ পাঠিয়েছেন শাকিব খান। অনেকটা সময় পার হয়ে গেলেও এই নোটিশের বিপরীতে কোনো ভূমিকা দেখা যায়নি অপুর।