Tuesday , October 16 2018
Breaking News

আসছে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ, সম্ভাবনা বৃষ্টির

শীতের তীব্রতা কিছুটা কমেছে, কিন্তু এখনও তা পুরোপুরি দূর হয়নি। কিন্তু হঠাত করেই আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ ও বৃষ্টির সম্ভাবনা হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে নতুন করে। দেশের বেশ কিছু অঞ্চলে শীত আবারও পড়বে, সেইসাথে বৃষ্টিরও আভাষ রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানান, তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করলেও সহসাই এই শীত যাচ্ছে না। এ মাসেই বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এ মাসের শেষ দিকে আরও একটি শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

সিলেট, রাজশাহী, রংপুর, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড অঞ্চল, ময়মনসিংহ, খুলনা, ঢাকা ও বরিশাল বিভাগের ওপর দিয়ে যে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে, তা অব্যাহত থাকতে পারে। তবে সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে। প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে দিনের তাপমাত্রা।

আজ রবিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এসব তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে জানিয়ে পূর্বাভাসে আরো বলা হয়েছে, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও নদী অববাহিকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

আজ রবিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায়, ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এরপর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায়, ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া নয়টি স্থানের তাপমাত্রা ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ঘরে ছিল।

এর মধ্যে নীলফামারীর সৈয়দপুরে ৮ ডিগ্রি, পাবনার ঈশ্বরদীতে ৮ দশমিক ২, দিনাজপুরে ৮ দশমিক ৩, চুয়াডাঙ্গা ও নওগাঁর বদলগাছিতে ৮ দশমিক ৪, রাজশাহীতে ৮ দশমিক ৫, নীলফামারীর ডিমলায় ৮ দশমিক ৬, পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৮ দশমিক ৭ ও গোপালগঞ্জে ৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

দেশের ১২টি স্থানে তাপমাত্রা ছিল ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ঘরে। এর মধ্যে টাঙ্গাইল, সীতাকুণ্ড ও সাতক্ষীরায় তাপমাত্রা ছিল ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অন্যদিকে, ফরিদপুর ও রংপুরে ৯ দশমিক ২ ডিগ্রি, ময়মনসিংহে ৯ দশমিক ৩, ভোলা ও যশোরে ৯ দশমিক ৪, বরিশালে ৯ দশমিক ৬, মাদারীপুর ও সিলেটে ৯ দশমিক ৭ ও বগুড়ায় ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এছাড়া উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। আজ সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯৪ শতাংশ।

এর আগে দেশের ইতিহাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড পাওয়া গেছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়। সেখানে ব্যারোমিটারের পারদ ২ দশমিক ৬ ডিগ্রিতে থমকে ছিল, যা ছিল ৫০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। তারও আগে সর্বশেষ তীব্র শীত পড়েছিল ১৯৬৮ সালে। ওই বছরের ৪ ফেব্রুয়ারি সিলেটের শ্রীমঙ্গলে ২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। এরও ২০ বছর আগে ১৯৪৮ সাল পর্যন্ত এই তাপমাত্রার রেকর্ড খুঁজে পায়নি আবহাওয়া অফিস। তবে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, তাপমাত্রা ধীর লয়ে বাড়তে থাকবে। উন্নতি ঘটবে শৈত্যপ্রবাহ পরিস্থিতির; তবে শীত অনুভূত হবে।