Wednesday , December 19 2018
Breaking News

ভুলেও গামছা ছিঁড়ে গেলে সেলাই করবেন না

বেশি ব্যবহারের কারণে গামছার ওপর চাপ বেশি পড়ে সব সময়ে। শুধু গামছাই নয়, যে সমস্ত সুতো দিয়ে গেঞ্জির কাপড় তৈরি হয় তা সেলাই করলে টেকসই হয় না। ফলে এই জিনিসগুলো সেলাই করলে লাভজনক হয় না।

এছাড়া সবাই সেলাই করে ব্যবহার করলে চাহিদা কমে যাবে, ফলে তাঁত শিল্প মার খাবে। তাঁতির ঘরে দারিদ্র নেমে আসবে। কাজেই সংস্কার মোটেই অযৌক্তিক কিছু না। তবে অনেকে বলেন, ছেঁড়া গামছা সেলাই করে ব্যবহার করলে নাকি বাড়িতে দারিদ্রাতা নেমে আসে।

শুধু তাই নয়, ছেঁড়া গামছার ব্যবহার নিয়ে গ্রামেগঞ্জে একাধিক সংস্কার-কুসংস্কার রয়েছে। আর তা মেনেও চলেন অনেকে। যদিও যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে বিশ্ব, সেভাবেই ক্রমশ এই সমস্ত সংস্কারগুলিও মুছে যাচ্ছে। তবে গামছার ব্যবহার যেভাবে কমছে তাতে আগামী দিনে এই শিল্প কিংবা এই গামছা থাকবে কিনা তা নিয়ে নানারকম সন্দেহ দেখা দিয়েছে।

সূত্রঃ ইন্টারনেট।

খুনের পর স্ত্রীর দেহ টুকরো টুকরো করে কেটে স্টোভে রান্না করল স্বামী!

নিজের প্রাক্তন স্ত্রীকে খুনের পর তার দেহ টুকরো টুকরো করে কেটে তা স্টোভে রান্না করেছে এক ব্যক্তি। নিহত ওই নারী গত এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ ছিলেন বলে জানা গেছে। নারকীয় এই ঘটনা ঘটেছে মেক্সিকোতে।

পুলিশ ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে।

তদন্তকারী গোয়েন্দাদের কাছ থেকে জানা গেছে, চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি ২৮ বছরের ম্যাগডালেনা আগুইলার রোমেরো তার সন্তানদের ট্যাস্কোতে তার প্রাক্তন স্বামীর বাড়ি থেকে আনতে যান। কিন্তু স্বামীর বাড়ি থেকে আর তিনি ফিরে আসেননি। পরে পুলিশ অভিযুক্ত সিজার লোপেজের বাড়ি থেকে নারীর দগ্ধ দেহ উদ্ধার করে।

স্টোভের ওপর একটি পাত্রে নারীর টুকরো করা দেহাবশেষ পোড়া অবস্থায় পাওয়া যায়। কিছুটা দেহের টুকরো প্ল্যাস্টিক ব্যাগে করে ফ্রিজে রাখা ছিল, সেটাও উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ধারণা করছে, দেহটিকে টুকরো করে রান্না করা হয়েছিল। জানা গেছে, ওই নারীর প্রাক্তন স্বামী নারী বিদ্বেষী ছিল। সে কারণেই সে তার স্ত্রীকে নৃশংসভাবে খুন করে।