Tuesday , November 13 2018
Breaking News

কেন আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন এই সুন্দরী? জানলে চোখে পানি আসবে!!

জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিসেবে হিমাচল প্রদেশে খ্যাতির শিখরে ছিলেন এই সুন্দরী। মডেলিং-এর সঙ্গে সঙ্গে করতেন অভিনয়ও। এমনকী, সঙ্গীতশিল্পী হিসাবে জনপ্রিয়তা ছিল দেখার মতো। রিচা ধীমান। বছর ২৪-এর রিচার অকাল প্রয়াণে এখন শোকস্তব্ধ হিমাচলের বিনোদন জগৎ। মডেল, অভিনেত্রী ও সঙ্গীতশিল্পী হিস‌েবে খ্যাতির শিখরে ছিলেন রিচা। হিমাচলের ছবিতে অভিনয় করার সঙ্গে সঙ্গে বহু তেলুগু ছবিতেও গুরুত্বপূর্ণ পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেছেন রিচা। হিমাচলেই ২০০-রও বেশি মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করেছেন। চার দিন আগে ঘরের দরজা ভেঙে রিচার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান আত্মঘাতী হয়েছেন রিচা। মৃতদেহের পাশ থেকে উদ্ধার হওয়া সুইসাইড নোটও পাওয়া গিয়েছে। সুইসাইড নোটে রিচা স্পষ্ট করে তাঁর মৃত্যুর জন্য প্রেমিক সন্দীপকেই দায়ী করেছেন।

সন্দীপ আপাতত পুলিশের হেফাজতে। তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৬ এবং ৩৪ নম্বর ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে। রিচা এবং সন্দীপ বহুদিন থেকেই সম্পর্কে ছিলেন। দু’জনের বিয়ের কথাও ছিল। তাহলে আচমকা রিচা কেন আত্মহত্যা করতে গেলেন? রিচার ঘনিষ্ঠ বন্ধু-বান্ধব এবং সহকর্মীদের দাবি, রিচার সঙ্গে সন্দীপের বিয়ের দিন ঘোষণা হতেই সমস্যা শুরু হয়। বিয়ের কার্ড ছাপানোর পর থেকেই রিচাকে এড়িয়ে চলতে শুরু করেন সন্দীপ। এমনকী, সন্দীপ জানিয়েও দিয়েছিলেন তিনি রিচাকে বিয়ে করবেন না। যারপরনাই হতাশ হয়ে পড়েছিলেন রিচা।

রাতদিন সন্দীপের সঙ্গে ঝগড়া করতেন। সন্দীপকে সমানে ফোন করতেন। কিন্তু, হিমাচল পুলিশে কনস্টেবল পদে কর্মরত সন্দীপ ফোন ধরতেন না। রিচার বাবা-মায়েরও অভিযোগ, সন্দীপের সঙ্গে তাঁদের মেয়েদের সমস্যা হয়েছে তা তাঁরা বুঝতে পেরেছিলেন। এই নিয়ে রিচা কিছু খুলে বলেনি। সন্দীপ যে বিয়েতে বেঁকে বসেছে তাও জানায়নি। রিচার দেশের বাড়ি হিমাচলের কাঙ্গরা জেলার পালামপুরে। ধর্মশালায় ভাড়া বাড়িতে থাকতেন রিচা। বেলা সোয়া এগারোটাতেও বহু ডাকাডাকির পরেও রিচা দরজা না খোলায় থানায় খবর দেওয়া হয়। দরজা ভেঙে পুলিশ দেখে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না ঝুলিয়ে তা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলছেন রিচা। তাঁর শোবার ঘর থেকে পুলিশ একটি মোবাইলও উদ্ধার করে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মোবাইল ফোন ঘেঁটে দেখা গিয়েছে কললিস্টে অসংখ্যবার সন্দীপকে ফোন করেছিলেন রিচা। কিন্তু, অধিকাংশ ফোনই ধরেননি সন্দীপ। ঘটনার আগের দিন রাত সাড়ে এগারোটাতে রিচার ফোন ধরেছিলেন সন্দীপ। দু’জনের মধ্যে বিপুল ঝগড়া হয়। সেই ঝগড়া রিচার ফোনে রেকর্ডও হয়ে যায়। পুলিশের দাবি, ঝগড়ার সময় রিচা নাকি সন্দীপকে বলেছিলেন, তিনি নিজেকে শেষ করে দেবেন এবং এর জন্য নাকি দায়ী থাকবেন সন্দীপ এবং তাঁর বর্তমান প্রেমিকা। পুলিশের মতে, রিচা ও সন্দীপের সম্পর্কের মাঝখানে কোনও তৃতীয় নারী ঢুকে পড়েছিল। যাঁকে নিয়ে তুমুল লড়াই বেধেছিল রিচা ও সন্দীপের মধ্যে। মোবাইলে রেকর্ড হওয়া ঝগড়ায় রিচা নাকি এও বলেছেন, শুধুমাত্র সন্দীপের জন্য তিনি তাঁর কেরিয়ারের দিকে তাকাননি। বহু সুযোগ ছেড়ে দিয়েছেন শুধুমাত্র সন্দীপের থেকে দূরে না থাকার জন্য। নিজের প্রতিভা, নিজের কেরিয়ারকে জলাঞ্জলি দিয়েছেন। আপাতত, সন্দীপকে জেরা করছে পুলিশ। মেয়ের করুণ পরিণতির জন্য সন্দীপের কড়া শাস্তির জন্য সওয়াল করছেন রিচার বাবা-মা।