Friday , December 14 2018
Breaking News

দাদুকে কারাগারে দেখে জাহিয়ার কান্না জাহিয়ার কান্না

দাদুকে কারাগারে দেখে- বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রয়াত ছেলে কোকোর ছোট মেয়ে জাহিয়া রহমান পড়াশোনা করেন লন্ডনের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। দুর্নীতি মামলায় সাজা পেয়ে গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী দাদুকে দেখে ডুকরে কেঁদে ওঠেন তিনি।

তার কান্না ছুঁয়ে যায় নাজিম উদ্দিন রোডের প্রিজন সেলে থালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যাওয়া পরিবারের অন্য সদস্যদেরও। এ তথ্য জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শী একজন কারারক্ষী।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে পৌনে ৫টা পর্যন্ত খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার পরিবারের ছয় সদস্য সাক্ষাৎ করেন। তাদের মধ্যে ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান ও ছোট মেয়ে জাহিয়া রহমান, বড় বোন সেলিমা ইসলাম, ভাই শামীম এস্কান্দার, ভাবি কানিজ ফাতেমা ও ভাগনে অভিক এস্কান্দার।

এ সময়ে তারা খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন। তবে গণমাধ্যমের তারা কেউ কথা বলেননি।

ওই সময় সেখানে উপস্থিত একজন কারারক্ষী নাম প্রকাশ না করার শর্ত জানান, সাক্ষাতের সময় খুবই কান্নাকাটি করেছেন খালেদা জিয়ার নাতনি কোকোর ছোট মেয়ে জাহিয়া।

তার কান্নায় ভিজে ওঠে অন্যদের চোখ। এসময় আবেগপ্রবণ হয়ে ওঠেন পরিবারের অন্য সদস্যরাও।বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে তার পরিবারের কী কথা হয়েছে? এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রত্যক্ষদর্শী ওই কারারক্ষী নিজের অপারগতার কথা জানান।

প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান ও ছোট মেয়ে জাহিয়া রহমান লন্ডন থেকে দেশে ফিরেন গত বৃহস্পতিবার। সেদিনই তারা বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করার আবেদন জানান কারা কতৃপক্ষের কাছে।

পরদিন অর্থাৎ শুক্রবার তারা সাক্ষাৎ করার সুযোগ পান। সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে কারাবন্দী অবস্থায় দেখে নিজেকে সামালাতে পারেননি তার ছোট নাতনি জাহিয়া। সাক্ষাৎ শেষে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বের হওয়ার সময় খালেদা জিয়ার পরিবারের একাধিক সদস্যকে গণমাধ্যমকে আড়াল করে চোখ মুছতে দেখা গেছে।