Friday , December 14 2018
Breaking News

‘নরকের অস্তিত্ব নেই’, এমনটাই বললেন পোপ ফ্রান্সিস

স্বর্গ-নরকের অস্তিত্ব আছে কি নেই- এ নিয়ে দ্বন্দ্ব আর তর্ক আমাদের মুখে মুখে। কেউ বলে স্বর্গ-নরক আছে, কেউ বলে নেই। কিন্তু এবার পোপ ফ্রান্সিস বলে বসলেন ‘‌নরকের অস্তিত্ব নেই’! আর এতেই পড়ে গেলেন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে।

পোপের মন্তব্যে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়ে গিয়েছে ভ্যাটিকান। আর তাই রীতিমতো লিখিত বিবৃতি দিয়ে ভ্যাটিকানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘পোপের মন্তব্য বিকৃত করা হয়েছে। তাঁর বক্তব্যের অপব্যাখ্যা করা হয়েছে।’

এই ঘটনাটি ঘটেছে একটি সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে। পোপ ফ্রান্সিসের একান্ত একটি সাক্ষাৎকার নেন ইতালির দৈনিক ‘লা রিপাবলিকা’র প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ইউজেনিও স্ক্যালফেরি। যেটি ছাপা হয় গত বুধবার। তাতে একটি দীর্ঘ প্রবন্ধে ইতালির প্রবীণ সাংবাদিক স্ক্যালফেরি পোপকে উদ্ধৃত করেন।

স্ক্যালফেরির প্রবন্ধ অনুযায়ী, পোপকে তাঁর প্রশ্ন ছিল, ‘দুষ্ট আত্মারা যায় কোথায়?’ তখন পোপ ফ্রান্সিস উত্তর দেন, ‘তাদের কোনও শাস্তি হয় না। যাঁরা নিজেদের ভুলভ্রান্তির জন্য অনুতপ্ত হন, ঈশ্বর তাঁদের ক্ষমা করেন। মৃত্যুর পর তাঁদের জায়গা হয় সেখানেই, যেখানে ঠাঁই পায় সেই সব আত্মা, যারা বরাবর ঈশ্বরকে মেনে চলেছে। আর যাঁরা অনুতপ্ত হন না, ঈশ্বর তাঁদের ক্ষমাও করেন না। তারা হারিয়ে যায়। নরকের কোনও অস্তিত্ব নেই। কিন্তু পাপী আত্মারা যে উধাও হয়ে যায়, সেটা বাস্তব।’

স্ক্যালফেরি এই বিষয়ে বলেন, ওই সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় তিনি নোটবুক বা কলম নেননি, এমনকি কোনো রেকর্ডও রাখেননি। তিনি ঈশ্বরে বিশ্বাস করেন না। পোপ ফ্রান্সিস নাস্তিকদের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলেন বলেই তাঁকে সময় দিয়েছিলেন।

পোপ ফ্রান্সিসের আরও বিতর্কিত মন্তব্যের ঘটনা আছে। ২০১৩ সালে তিনি বলেছিলেন, ‘যদি কোনো সমকামী ঈশ্বরকে চান, পেতেই পারেন। আমি বাধা দেওয়ার কে?’ আবার ২০১৫ সালে ক্যাথলিক চার্চ নিয়ে পোপ ফ্রান্সিস বলেছিলেন, ‘আমার তো ক্যাথলিক চার্চগুলিকে অনেক সময়েই হাসপাতাল বলে মনে হয়। যত ক্ষতবিক্ষত মানুষের ভিড় সেখানে।’

তবে জানা গেছে, পোপ ফ্রান্সিসের মন্তব্য বিকৃত করার অভিযোগ ২০১৪ তে ভ্যাটিকান আগেও করেছিলো। তখন পোপ স্ক্যালপেরিকে বলেছিলেন, ‘পাপের অবলুপ্তি ঘটিয়েছি আমি।’ এর আগে অবশ্য নরক নিয়ে পরস্পরবিরোধী মন্তব্য করেছেন ভ্যাটিকানের প্রাক্তন পোপ ষোড়শ বেনেডিক্ট ও পোপ দ্বিতীয় জন পল।

২০০৭ সালে পোপ ষোড়শ বেনেডিক্ট বলেছিলেন, ‘সত্যি সত্যিই নরক রয়েছে।’ যদিও ১৯৯৯ সালে পোপ দ্বিতীয় জন পল মন্তব্য করেছিলেন, ‘নরক কোনও আলাদা জায়গা নয়। পাপের পরিণতিই নরক।’