Monday , July 23 2018
Breaking News

যে কারণে কলকাতার নায়িকাদের টার্গেট শুধুই শাকিব খান

কলকাতার নায়িকা হিসেবে শাকিবের বিপরীতে সর্বপ্রথম কাজ করেন স্বস্তিকা মুখার্জি। এফ আই মানিক পরিচালিত ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তি পায় ‘সবার উপরে তুমি’ নামে ১৩ নভেম্বর ২০০৯ সালে। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১০ সালে কলকাতায় মুক্তি পায় ‘আমার ভাই আমার বোন’ নাম নিয়ে। ছবিটি নির্মিত হয়েছিলো যৌথ প্রযোজনায়।

এরপর দীর্ঘ বিরতি দিয়ে ২০১৬ সালে এসকে মুভিজ ও বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়ার হাত ধরে কলকাতায় আবার আলো ছড়ান বাংলা চলচ্চিত্রের সুপার স্টার শাকিব খান।
শুধু তাই নয় শাকিব অভিনীত শিকারী ছবিটি দিয়ে ঢাকায় চলচ্চিত্র অভিষেক হয় কলকাতার নায়িক শ্রাবন্তী। শাকিব খান ও শ্রাবন্তী জুটি অভিনীত ‘শিকারী’ ছবি দুই বাংলায় বেশ সাড়া পায়।

কলকাতা শাসন করা উত্তম-সৌমিত্র-মিঠুনদের পর প্রসেনজিত অভিনয়ে কলকাতার চলচ্চিত্র যেন অনেকটা একঘেয়েমি হয়ে গেছে। এরপর তরুণদের নাচেতে আসেন জিৎ, দেব, সোহম, অঙ্কুশ, আবির সাথে নায়িকা হিসেবে স্বস্তিকা, শ্রাবন্তী, কোয়েল মল্লিক, শুভশ্রীরা নতুনরা। আর এতে বাণিজ্যিক সিনেমার গল্পের বদল, নির্মাণের ব্যতিক্রম ভাবনা আসে। বৃদ্ধি হয় সিনেমার বাজেট। দেখা যায় চাকচিক্য। এলো ব্যবসায়িক সফলতাও।

তবে বেদনা হয়ে বাজলো তামিল আর বলিউডের ছবির নকল করার ভয়ঙ্কর প্রতিযোগিতা। একটা পরিবর্তন চাইছিল টালিগঞ্জ। অবশেষে নতুন সুর তুলে এলেন বেশ ক’জন ম্যাজিশিয়ান নির্মাতা। সৃজিত মুখার্জি, কৌশিক গাঙ্গুলি, কমলেশ্বর, অরিন্দম শীল, নন্দিতা দাসের মতো নির্মাতাদের হাত ধরে বদলে গেল কলকাতার চলচ্চিত্র শিল্প। মৌলিক গল্প, নির্মাণের মুন্সিয়ানা, ফ্রেম, লাইট, গল্প বলার স্মার্টনিটিতে আবারও হলে ফিরলো রুচিশীল দর্শক।

এদিকে ২০১৬ সালে এসকে মুভিজ ও বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়ার যৌথ প্রযোজনায় শাকিব খান ও শ্রাবন্তী ছবি ‘শিকারী’ ছবিটি মুক্তি পেলে বাংলাদেশ দারুণ ব্যবসা করতে সমর্থ হয়। পাশাপাশি কলকাতায় ছবিটি বেশ সাফল্য পায়।

এরপর থেকেই যৌথ প্রযোজনার উপর ঝুকেতে থাকে নির্মাতারা। ফলে পরের বছর একই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে জুটি বাঁধেন শাকিব খান ও শুভশ্রী। তাদের ছবিটির নাম ছিলো ‘নবাব’। গেল বছরের কোরবানী ঈদে মুক্তি পাওয়া ছবিটি নবাবী করেছে সিনেমা হলে।

মজার ব্যপার হল একদিকে ঝুঁকছে বাংলার নায়ক শাকিব খানের দিকে ও যৌথ প্রযোজনার উপর। পাশাপাশি কলকাতার নায়িকাদের এখন নায়ক হিসেবে শাকিবকেই প্রধান পছন্দ। গেল বছর মুক্তি পায় ‘সত্তা’ নামের ছবিটি। এতে কলকাতার পাওলি দামের সঙ্গে জুটি বেঁধে যদিও সুবিধা করতে পারেননি শাকিব। তবে নিজের ব্যতিক্রমী অভিনয়ের স্বাক্ষর রেখেছেন শাকিব।

এবার অপেক্ষা রয়েছে শাকিবকে নিয়ে সায়ন্তিকা ও নুসরাত জাহানের ছবি ‘মাস্ক’র মুক্তি। কলকাতার সবেচেয়ে বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের ব্যানারে একক প্রযোজনাতেই ছবিটি নির্মিত হবে বাংলাদেশে। সাফটায় ছবিটি মুক্তি পাবে বাংলাদেশেও। এ ছবিটি নিয়ে আশাবাদী কলকাতার দুই নায়িকা। তারাও বুক বেঁধেছেন শ্রাবন্তী ও শুভশ্রীর মতোই সফল হবেন বাংলাদেশে, সেই আশাতে।

এর বাইরে শাকিব আরও দুটি সিনেমাতে কাজ করছেন শুভশ্রী ও সায়ন্তিকাকে নিয়ে। জয়দীপ মুখার্জি পরিচালিত ‘চালবাজে’ শাকিবের সঙ্গে রোমান্টিক নায়িকা হিসেবে দেখা যাবে শুভশ্রীকে। আর সায়ন্তিকার সঙ্গে শাকিবকে নিয়ে কলকাতার পরিচালক রাজিব নতুন একটি ছবির উদ্যোগ নিয়েছিলেন গতবছর।

এদিকে চলচ্চিত্রপাড়ার আলোচনা, কলকাতায় পরিবর্তনের সঙ্গে তাল না মেলাতে পেরে বেকার হতে যাওয়া বেশ ক’জন নায়িকাদের টার্গেট এখন বাংলাদেশের সিনেমা বাজার। এখানেই তারা জমিয়ে তুলতে চাইছেন নিজেদের ক্যারিয়ার। অভিষেকের জন্য তারা বেছে নিচ্ছেন শাকিব খানকে। এজন্য তারা নিয়মিতই ধরনা দিচ্ছেন কলকাতার বিভিন্ন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানে। কারো কারো টার্গেটে রয়েছে বাংলাদেশের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়াও।

কেননা, ওই প্রতিষ্ঠানটির হাত ধরেই বাংলাদেশে শুভযাত্রা করেছেন শ্রাবন্তী ও শুভশ্রী। নায়িকাদের পাশাপাশি জিৎ, ওম, অঙ্কুশের মতো নায়কেরাও এই প্রতিষ্ঠানের প্রযোজনায় বাংলাদেশের সিনেমা হলে হাজির হয়েছেন।