Thursday , April 26 2018
Breaking News

মোবাইলে প্রেম, বিমানবন্দর থেকে প্রবাসী নারীকে তুলে নিল প্রেমিক

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার পূর্ব ডুমুরিয়া এলাকার জর্ডান প্রবাসী এক তরুণীকে (১৯) এক মাসের অধিক বিভিন্ন স্থানে আটকে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে তার প্রেমিকের বিরুদ্ধে
এ ঘটনায় মামলা করেছেন ওই প্রেমিকা। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ওই প্রবাসী তরুণী বাদী হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। এই মামলায় অভিযুক্ত নছিমনচালক শাহাদাত হোসেন ফকির তার বাবা বাবুল ফকির ও মা পেয়ারা বেগমকে আসামি করা হয়।

নির্যাতিত প্রবাসী তরুণী জানান, ৯ মাস আগে বার্থী (গাইনের পাড়) এলাকার বাবুল ফকিরের ছেলে নছিমনচালক শাহাদাত হোসেন ফকিরের সঙ্গে মোবাইলে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

পরবর্তীতে তিনি চাকরির জন্য জর্ডান যান। আড়াই মাস পর গত জানুয়ারি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে দেশে ফিরেন। হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামলে তাকে তুলে নিয়ে ঢাকার একটি বাসায় আটকে রেখে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে প্রেমিক।

পরবর্তীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শাহাদাত ফকির তার বাড়িতে নিয়ে আসে তরুণীকে। সেখানেও একমাস আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়। বিয়ের করার কথা বললেই শাহাদাত তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায়।

একপর্যায়ে মার্চ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে কৌশলে পালিয়ে বাবার বাড়ি যান তরুণী। এ ব্যাপারে নির্যাতিতা থানায় মামলা করতে চাইলে স্থানীয় প্রভাবশালীদের চাপের মুখে মামলা করতে সাহস পাননি। গত ১ এপ্রিল বিয়ের দাবিতে নির্যাতিতা শাহাদাতের বাড়িতে অনশন শুরু করেন।

এ খবর পেয়ে গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) আফজাল হোসেন শাহাদাতের বাড়িতে যান। পুলিশের বিচারের আশ্বাসে ওই দিন বাদ আসর অনশন ভেঙে নির্যাতিতা বাড়িতে ফিরে যান।

গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের ওসি মনিরুল ইসলাম মুনির বলেন, এ ঘটনায় নির্যাতিতা বাদী হয়ে শাহাদাত হোসেন ফকির তার বাবা বাবুল ফকির ও মা পেয়ারা বেগমকে আসামি করে মামলা করেছেন। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।