Monday , July 16 2018
Breaking News

লাশ পাঠিয়ে কবিরাজ জানায় ‘জ্বীনে মেরে ফেলেছে’

কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়ন ঝুমুর সংলগ্ন (সিন্দুরিয়া পাড়া) প্রবাসাী জামাল হোসেনের ছেলে মো: শেখ ফরিদ (৩) কে কবিরাজ মাহাবুবুর রহমান কর্তৃক হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার ভারাপাড়া এলাকার ভন্ড কবিরাজ মাহাবুবুর রহমান ও মোগলটুলী এলাকার খাদেম মিলে বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ঝুমুর সংলগ্ন সিন্দুরি পাড়ার প্রবাসী জামাল হোসেনের ছেলে শেখ ফরিদ কে মেরে ফেলেছে বলে অভিযোগ করেন।

জানা যায়,শুক্রবার ৩০ মার্চ ২০১৮ ইং তারিখে জামাল হোসেনের ছেলে শেখ ফরিদ দুষ্টামি করিত বেশি। তাই তার সন্তানের দুষ্টামি বন্ধ করতে ওই কবিরাজের কাছে নিয়ে যায়। কবিরাজ মাহাবুবুর রহমানের কাছে নিলে তিনি জানান, এই দুষ্টামি বন্ধ করিতে কয়েকদিন সময় লাগতে পারে।

কাজইে আপনার শেখ ফরিদকে ৩ দিনের জন্য আমার কাছে দিয়ে যান। শেখ ফরিদের মা তার সন্তানকে ৩ দিনের জন্য রেখে আসেন ওই কবিরাজের কাছে। ওই দিন রাতে মা কবিরাজের কাছে ফোন দিয়ে তার ছেলের সম্পর্কে জানতে চাইলে কবিরাজ জানায় শেখ ফরিদ অনেক ভাল আছে এবং চিকিৎসা চলছে রবিবারে এসে আপনার ছেলেকে নিয়ে যাবেন।

কবিরাজ আরো জানান, আপনার ছেলে একেবারে ভদ্র আর শান্ত হয়ে যাবে। ৩১ মার্চ শনিবার দুপুরে ১টার সময় ময়নামতিতে শিশু শেখ ফরিদ ফিরে আসেন তার মায়ের কাছে। কিন্তু ছেলে আর আগের মতো ছুটাছুটি করছে না, দুষ্টামিও আর করছে না। সাদা কফিনে মোড়ানো শেখ ফরিদ লাশ হয়ে আছেন মায়ের সামনে কিন্তু মা জননী কান্নায় হাউ মাউ করে উঠলে এই সময় স্থানীয় সকলদের কাছে তার মৃত্যুর খবর পৌছে যায়।

স্থানীয়রা ফোন করে জানতে চাইলে কবিরাজের কাছে কবিরাজ জানায় শেখ ফরিদকে জ্বীনে মেরে ফেলেছে সকালে গোসল ও জানাযা হয়ে গেছে আপনারা তাকে দাফন করে দিন। এ্যাম্বুলেন্সের সাথে ছিলেন মোগলটুলী এলাকার এক খাদেম ও ড্রাইভার জহিরুল ইসলাম। তারা বর্তমানে কোতয়ালী থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে বলে জানান শিশুর মামাতো ভাই মো: জাহিদ হোসেন ও নিহতের নিকটবর্তী মোবারক মিয়া।

এবিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার এসআই মারুফ জানান, এবিষয়টি আমরা জেনেছি। ওসি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুস সালাম জানান, আমরা একটি শিশুর ডেড বডি পেয়েছি তার মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরন করা হয়েছে। এখনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।