Wednesday , October 17 2018
Breaking News

কারাগারে চিকিৎসা নিচ্ছেন না খালেদা জিয়া, অসুস্থতা বাড়ছে

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বেশ কিছু দিন হল অসুস্থ। তার সুচিকিৎসার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে একটি বিশেষজ্ঞ মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হলেও তিনি তাদের চিকিৎসা গ্রহণ করতে রাজি নন বলে জানিয়েছেন কারা সূত্র।

গত ২৮ মার্চ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় পুরনো ঢাকার বকশিবাজারের অস্থায়ী আদালতে খালেদা জিয়ার স্বশরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ ছিল। সেদিন কারাকর্তৃপক্ষ আদালতে জানিয়েছিল খালেদা জিয়া অসুস্থ তিনি আদালতে হাজির হতে পারবেন না।

এছাড়া, পর দিন ২৯ মার্চ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে বন্দি খালেদার সাক্ষাৎ স্থগিত করে অসুস্থতার কথা বলা হয়। তখন থেকেই মূলত তার অসুস্থতার কথা সামনে আসে। এরপর বিএনপির অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওই মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

গত ১ এপ্রিল বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বোর্ডে চার সদস্য পুরনো ঢাকার পরিত্যাক্ত ওই কারাগারে যান। তারা বিএনপি নেত্রীকে দেখে কিছু পরীক্ষা এবং ওষুধের পরামর্শ দেন যা ৩ মার্চ কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে।

এদিকে, ব্যক্তিগত চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া অন্য কোনো চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবনে রাজি নন খালেদা জিয়া। কারা সূত্র বলছে, শুরু থেকে তিনি ওই কথাই বলে আসছে যার কারণে তার অসুখ দিন দিন বাড়ছে।

মেডিকেল বোর্ড সূত্র বলছে, বেগম জিয়া একা হাঁটতে পারছে না, তাছাড়া কারন্তরীণ থাকার কারণে তার আগের অসুখগুলোও বাড়ছে। এসব অসুখের জন্য ওষুধ দেয়া হলে, তিনি নিচ্ছেন না। ফলে অসুখ বাড়ছে।

৭৩ বছর বয়সী খালেদা জিয়ার হৃদযন্ত্র, চোখ ও হাঁটুর সমস্যা রয়েছে বলে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা আগে জানিয়েছিলেন। তাকে নানা রকম ওষুধ খেতে হয় নিয়মিত।

কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চার সদস্যের মেডিকেল বোর্ড খালেদা জিয়ার এক্স-রে ও রক্ত পরীক্ষার সুপারিশ করেছে।

এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, মেডিকেল বোর্ডের প্রতিবেদনটি আমরা হাতে পেয়েছি। প্রতিবেদন যে সুপারিশ করা হয়েছে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ক্ষেত্রে সরকারি যে কোনো ভালো হাসপাতালে এসব পরীক্ষা করা হবে। তবে খালেদা জিয়া চাইলে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসককে কারাগারে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেন নিম্ন আদালত। ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানসহ অন্য আসামিদের। রায়ে দিনেই খালেদা জিয়াকে পুরনো ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পরিত্যাক্ত সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। যেখানে আসামি হিসেবে তিনি একাই রয়েছেন।