Wednesday , October 17 2018
Breaking News

যে গোপন বেদনায় কারাগারে কাঁদলেন খালেদা জিয়া!

কারাগারে কাঁদলেন খালেদা- বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে কারাগারে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি, দুই নাতনি জাফিয়া ও জাহিয়ার সঙ্গে আরও ছিলেন খালেদা জিয়ার ভাই ও তার স্ত্রী এবং বোনও।

শনিবার বিকাল ৪টার দিকে ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে যান তারা। কারাগার ও বিএনপি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত সচিব আদুস সাত্তার বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসনের পরিবারের সদস্যরা পহেলা বৈশাখে তার সঙ্গে দেখা করা কথা ছিল। তবে তাদের মধ্যে কারা দেখা করেছেন তা আমি জানি না।’

এদিকে, কারাগারের দায়িত্বশীল সূত্র এবং সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে, দেশের চলমান রাজনীতি এবং সর্বশেষ কোটা সংস্কার আন্দোলনে ষড়যন্ত্র করেও সফল হতে না পারায় বেশ মর্মামত হয়েছেন তিনি। এমনকি পরিবারের সদস্যদের সামনে কান্নাও করেছেন বলে জানা গেছে।

এবারের পহেলা বৈশাখ নিজের দলের নেতাকর্মীদের ছাড়াই কেটেছেন খালেদা জিয়ার। প্রতি বছর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বৈশাখ উপলক্ষে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতেন তিনি। কিন্তু এবার কারাগারে থাকায় দলের সাংস্কৃতিক সংগঠন জাসাদের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারেননি এই সাবেক প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘প্রতি বছর আমাদের বৈশাখের অনুষ্ঠানে থাকতেন দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এখন তিনি কারাগারে। একটি মিথ্যা মামলায় অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে তাকে কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে।
গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৫-এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামানের আদালত খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। এ

কই আদালত খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয় আসামির সবাইকে মোট ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা ৮০ পয়সা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেন। এ অর্থ দণ্ডের টাকা প্রত্যেককে সমান অঙ্কে প্রদান করতে হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়। রায়ের পর থেকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া।